কাহারোলে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে জমি ও ঘরের দলিল পত্র হস্তান্তর

Loading

 শনিবার, ২৩ জানুয়ারী, ২০২১l

মুজিববর্ষ উপলক্ষে ‘আশ্রয়নের অধিকার শেখ হাসিনার উপহার’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে কাহারোল উপজেলায় ১’শত ৩৯টি ঘর গুচ্ছ আকারে ও একক ভাবে নির্মাণ করা হয়েছে।

শনিবার ২৩ জানুয়ারী সকাল সাড়ে ১০ টায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারা দেশে ৭০ হাজার ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে ঘর প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধনের পর দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলায় ১ শত ৩৯ জন গৃহ ও ভূমিহীনদের মাঝে জমি ও ঘরের দলিল পত্র হস্তান্তর করেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, কাহারোল উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল মালেক সরকার, কাহারোল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরুল হাসান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মীর মোঃ আল কামাহ্ তমাল, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ উপজেলা শাখার সভাপতি একেএম ফারুক সহ উপজেলার সকল ইউ,পি চেয়ারম্যানগণ।

Sponsored Post Learn from the experts: Create a successful blog with our brand new courseThe WordPress.com Blog

WordPress.com is excited to announce our newest offering: a course just for beginning bloggers where you’ll learn everything you need to know about blogging from the most trusted experts in the industry. We have helped millions of blogs get up and running, we know what works, and we want you to to know everything we know. This course provides all the fundamental skills and inspiration you need to get your blog started, an interactive community forum, and content updated annually.

একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী

একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ফাইল ছবি)

শনিবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০২১।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‌‘দেশে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না, মুজিববর্ষে এটাই সবচেয়ে বড় উৎসব।’

আজ শনিবার প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রায় ৭০ হাজার ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও ঘর প্রদান করছেন। এসময় তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আজকে আমার অত্যন্ত আনন্দের দিন। ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও ঘর প্রদান করতে পারা বড় আনন্দের। আমার বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মানুষের কথাই ভাবতেন। আমাদের পরিবারের লোকদের চেয়ে তিনি গরীব অসহায় মানুষদের নিয়ে বেশি ভাবতেন এবং কাজ করেছেন। এ গৃহ প্রদান কার্যক্রম তারই শুরু করা।’

এ সময় লাইভে যুক্ত ছিল খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলা, চাপাইনবাবগঞ্জ সদর, নীলফামারীর সৈয়দপুর ও হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলা। এছাড়াও দেশের সব উপজেলা অনলাইনে যুক্ত হয়।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় প্রায় ৯ লাখ মানুষকে পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে পাকাবাড়ি উপহার দেওয়া হচ্ছে। প্রথম পর্যায়ে ঘর পেলো দেশের ৪৯২টি উপজেলার ৬৯ হাজার ৯০৪ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার। আগামী মাসে আরও ১ লাখ পরিবার বাড়ি পাবে। অনুষ্ঠানে আশ্রয়ণ প্রকল্পের তৈরি ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করা হয়।

অস্ট্রেলিয়া থেকে ‘গুগল সার্চ ইঞ্জিন’ সরিয়ে নেয়ার হুমকি

সংগৃহীত প্রতীকী ছবি

অস্ট্রেলিয়া থেকে সার্চ ইঞ্জিন সরিয়ে নেয়ার হুমকি দিলো গুগল। সংবাদ প্রকাশকদের সাথে রয়্যালটি ভাগাভাগির সম্ভাব্য আইন নিয়ে দেশটির সরকারের সাথে দ্বন্দ্বে জড়ায় এ টেক জায়ান্ট।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সংবাদভিত্তিক পোস্ট থেকে আয়ে ভাগ বসাতে নজিরবিহীন একটি আইন প্রণয়নের প্রস্তুতি নিচ্ছে মেলবোর্ন। ফলে, প্রকাশিত সংবাদ থেকে প্রাপ্য অর্থের ব্যাপারে গুগল-ফেসবুকের সাথে দরদামের সুযোগ পাবেন প্রকাশকরা। একে, অস্ট্রেলিয়া সরকারের একতরফা সিদ্ধান্ত আখ্যা দিয়েছে গুগল।

গুগল বলছে, এতে গ্রাহকসেবায় বিঘ্ন ঘটবে। গুগল অস্ট্রেলিয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালক সিনেট শুনানিতে বলেন, মীমাংসায় না পৌঁছালে দেশটিতে গুগল সার্চ বন্ধ করে দেয়া হতে পারে। যদিও হুমকিতে কিচ্ছু যায়-আসে না, জবাব অস্ট্রেলীয় প্রধানমন্ত্রীর।

বীরগঞ্জে ধর্ষন মামলার বাদীকে খুন ও গুম করার হুমকি

 শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী, ২০২১।

Loading

বীরগঞ্জে ধর্ষন মামলার ভিকটিম ও বাদী সৌদি প্রবাসি মর্জিনাকে খুন এবং ঘুম করার হুমকি দেয়ায় ধর্ষক খালেক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে থানায় জিডি করা সত্বেও নিরাপত্তা হীনতায় মামলার ভিকটিম সৌদি প্রবাসি মর্জিনা, বাদীর পরিবার ও স্বাক্ষীরা ২৩ দিন ধরে বাড়ী-ঘর রেখে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। উর্দ্ধতন পুলিশ কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ দাবি ভূক্তভোগিদের।

বীরগঞ্জ থানা সুত্রে জানা গেছে, ১৬(১২)২০২১ইং, ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী/০৩ইং) এর ৯(১)/৩০ তৎসহ ২০১২ইং সালের পর্ণগ্রাফি নিয়ন্ত্রন আইনের ৮(১)ধারায় দায়েকৃত মামলার ভিকটিম ও বাদীর স্বামী- মোঃ শরিফুল ইসলাম পিতা-মোঃ আব্দুল হানিফ গ্রাম-দামাইক্ষেত্র মোবা-(০১৭৭৮-১৬৪৬৬৩) থানায় উপস্থিত হয়ে জিডি নং-১৩৩৮ তারিখ-৩০/১২/২০২১ইং মোতাবেক অভিযোগ করেন গত ২৯ ডিসেম্বর রাত ১০টায় উচ্চ আদালত থেকে সাময়িক জামিনে মুক্তি পেয়ে শতাধিক মোটরবাইক ও মোটর সাইকেল নিয়ে বীরগঞ্জ পৌর শহরের জননী ফিলিং স্ট্রেশন থেকে কল্যানী হাট পর্যন্ত হাত নেরে আনন্দ মিছিল ও উল্লাস করেছে।

ওই রাতেই মামলা আসামী-ধর্ষক খালেক চেয়ারম্যান পিতা মৃত হাজী তছলিম গ্রাম সৈয়দপুর কল্যানী, সহযোগি আসামী-নখাপাড়া গ্রামের-মৃত দেলায়ার হোসেনের ছেলে মোঃ আব্দুর রশিদ ও দাড়িয়াপুর গ্রামের মৃত ইয়াছিন আলীর ছেলে প্রভাষক রবিউল ইসলাম আদালতে বিচারাধিন মামলার তুলে নেওয়ার জন্য ভিকটিম ও বাদী মোছাঃ মর্জিনা খাতুন (২৪), তার স্বামী মোঃ শরিফুল ইসলাম (২৮) ও পরিবারের লোকজনকে এবং এজাহারে উল্লেখিত স্বাক্ষীদেরকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য হুমকি-ধামকি প্রদান করে। মামলা তুলে না নিলে ভিকটিম ও বাদীসহ স্বক্ষীদের গ্রাম ছাড়া করবে, নতুবা হত্যা করে লাশ নদীতে ভাসিয়ে দিবে বলে বিভিন্ন হুমকি দিচ্ছে। খুন ও গুম করার হুমকি-ধামকির কারনে তারা নিরঘুম রাত্রি যাপন করছে।

জিডি নং-১৩৩৮ তারিখ-৩০/১২/২০২১ইং এর স্বাক্ষী-প্রভাষক মোঃ রফিকুল ইসলাম আসলাম পিতা মৃত-মফেল উদ্দিন গ্রাম- দাড়িয়াপুর, মোঃ আশরাফুল ইসলাম পিতা মৃত-কাওছার আলী ও মোঃ শাহিনুর ইসলাম পিতা মৃত-নাসির উদ্দিন উভয় গ্রাম-সম্ভুগাঁও উল্লেখিত ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, একাধিক নারী ধর্ষনকারী খালেক চেয়ারম্যান ও তার সহযোগিদের ভয়ে ২৩ দিন ধরে ভিকটিম মর্জিনা ও তার স্বামী শরিফুলসহ পরিবারের সদস্য ও স্বাক্ষীরা বাড়ীঘর ফেলে রেখে প্রান ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। থানা পুলিশ তাদের নিরাপত্তা দিতে পারছেনা, জরুরী ভিত্তিতে পুলিশের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষে আশু হস্তক্ষেপসহ ধর্ষকের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের সুষ্ঠ তদন্ত ও দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তির জোর দাবি জানান তারা। বীরগঞ্জ থানার ওসি মোঃ আব্দুল মতিন প্রধান জানান, উভয় পক্ষে জিডি হয়েছে তদন্ত চলছে। সত্যতার ভিত্তিতে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঠাকুরগাঁওয়ে ধরা পড়লেন ভয়ঙ্কর সেই গৃহকর্মী

গৃহকর্মী রেখা

৭৫ বছর বয়সী বৃদ্ধাকে নগ্ন করে পিটিয়ে বাসার মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়ে যাওয়া সেই গৃহকর্মী রেখা বেগমকে (৩০) অবশেষে গ্রেপ্তার করছে পুলিশ। জিনিসপত্র লুটে নিয়ে ঢাকা থেকে সে পালিয়ে এসেছিলেন তার মামার বাড়ি ঠাকুরগাঁওয়ে। বুধবার গভীর রাতে ঢাকা শাহজাহানপুর থানার একদল পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। এ তথ্য নিশ্চিত করেন ঠাকুরগাঁও পুলিশ সুপার মোহা. জাহাঙ্গীর আলম।

জানা গেছে, ডিএমপির শাহজাহানপুর থানার এসআই রেজাউল করিম সঙ্গীয় র্ফোস নিয়ে রানীশংকৈল থানা পুলিশের সহযোগিতায় ওই গৃহকর্মীকে তার পালিত মামা উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের চিকনমাটি এলাকার কফিলউদ্দীনের বাড়ি থেকে আটক করেন।

রানীশংকৈল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম জাহিদ বলেন, গৃহকর্ত্রীকে নির্মম ঘটনাটি বাড়ির সিসিটিভিতে ধরা পড়ে। সেই সিসিটিভির ফুটেজ বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশ হলে টনক নড়ে স্থানীয় প্রশাসনের। পরের দিন মঙ্গলবার এ ঘটনায় শাহজাহানপুর থানায় মামলা হয়। সেই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আটকের সময় তার কাছে থাকা চারটি স্বর্ণের চুরি দুটি আংটি একটি গলার চেইন একটি নাকের ফুল ও নগদ ৫০ হাজার ২০০ টাকা উদ্বার করেছে পুলিশ। পরে রেখাকে ঢাকায় নিয়ে গেছে শাহজাহানপুর থানা পুলিশ।

ফেব্রুয়ারিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে

প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

শুক্রবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০২১।

ফেব্রুয়ারিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা যায় কি না, সে জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। তবে কবে খুলবে, সেটি নির্ভর করছে করোনার সংক্রমণের পরিস্থিতি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা ও করোনা সংক্রমণ মোকাবিলা সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির মতামতের ওপর।

বৃহস্পতিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীসহ অন্যান্য কয়েকজন কর্মকর্তা ভার্চুয়াল সভা করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন। বৈঠকে অংশ নেওয়া কেউ কেউ ফেব্রুয়ারিতে খোলার পক্ষে মত দিয়েছেন।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, পূর্ব প্রস্তুতি হিসেবে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) এবং প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে কিছু নির্দেশনা দেবে। যা ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে বাস্তবায়ন করতে বলা হবে। এর মধ্যে করোনার সংক্রমণের পরিস্থিতি কোন দিকে যায় সেটিও দেখা হবে এবং খোলার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা চাওয়া হবে।

করোনা ভাইরাসের কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি চলছে। সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী, ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি আছে।

এর মধ্যে গণসাক্ষরতা অভিযানের এডুকেশন ওয়াচ নামে এক সমীক্ষার তথ্য বলছে, প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের ৭৫ শতাংশ শিক্ষার্থী ও ৭৬ শতাংশ অভিভাবক বিদ্যালয় খুলে দেওয়ার পক্ষে। জাতীয় সংসদেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিকল্পনা হলো, আগামী ফেব্রুয়ারি থেকে প্রথমে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের শ্রেণিকক্ষে ফেরানো। এরপর পরিস্থিতি বিবেচনা অনুযায়ী, অন্যান্য স্তরের শিক্ষার্থীদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া।

ক্ষমতাসীন দলের আশ্রয়কৃত ভূমি দখলকারীদের হাতে জিম্মি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়

বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী, ২০২১।

ঘটনাবলীর সংগৃহীত ছবি

ক্ষমতাসীন দলের আশ্রয়কৃত জমি দখলকারীরা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মালিকানাধীন জমি দখল করতে থাকায় সনাতন ধর্মাবলম্বী সম্প্রদায় তাদের সুরক্ষা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছে।

হিন্দু নেতারা বলেছিলেন, সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যের নেতৃত্বে অপরাধীরা রাজধানীর অদূরে সাভার উপজেলার আশুলিয়া ইউনিয়নের শ্রীখন্ডিয়ায় জমি দখল করে সন্ত্রাসের রাজত্ব তৈরি করেছিল।

আজোবধি অপরাধীর বিরুদ্ধে কোনও প্রশাসনিক পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।

অন্য একটি ঘটনায়, মঞ্জুর-এর নেতৃত্বে একদল লোক বরিশালের ওয়াজিরপুর উপজেলার রাজাপুর গ্রামে অবৈধভাবে ফ্রান্সিস বারোইয়ের মালিকানাধীন জমিটি দখল করে।

বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট অভিযোগ করেছেন যে, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এবং আদালত দোষীদের দ্বারা জিম্মি হওয়ায় সংশ্লিষ্ট থানায় দায়ের করা অনেক জিডিও সংখ্যালঘুদের দুর্ভোগ নিরসনে ব্যর্থ হয়েছে।

বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোট সংসদে reserved০ টি সংরক্ষিত আসনের বিধান রাখা এবং সংখ্যালঘুদের জন্য পৃথক নির্বাচন ব্যবস্থা, সংখ্যালঘু বিষয়ক মন্ত্রক গঠন এবং সংখ্যালঘুদের অধিকার নিশ্চিত করার জন্য একটি স্বল্প সংখ্যালঘু কমিশনের দাবি জানান।

সংস্থাটি বলেছে যে, হিন্দু ও খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে এই জাতীয় পদক্ষেপের প্রয়োজন।

সংগঠনের নেতৃবৃন্দ আশা করেছিলেন সংসদের বর্তমান অধিবেশনে বিল পাস করে সরকার তাদের দাবি বাস্তবায়নের পদক্ষেপ নেবে।

সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের নেতারা এ মন্তব্য করেন।

সংগঠনের সেক্রেটারি জেনারেল অ্যাডভোকেট গোবিন্দ চন্দ্র প্রামণিক সংবাদ সম্মেলনে একটি লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, এতে অন্যান্যের মধ্যে সংগঠনের সভাপতি অ্যাডভোকেট বিধান বিহারী গোস্বামী উপস্থিত ছিলেন।

২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে ২৯ব ডিসেম্বর পর্যন্ত হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর অত্যাচারের পরিসংখ্যান উপস্থাপন করে অ্যাডভোকেট প্রামাণিক বলেছেন, সংখ্যা লঘু হিন্দু ১৪৯ জন মারা গিয়েছিল, ২০১৮ জন হুমকির মুখে পড়েছে, ১৪জনকে হত্যার চেষ্টা করেছিল, হামলায় আহত হয়েছিল ৩৭৩৭জন, আহত হয়েছেন ৬১১ জন, চাঁদাবাজির পরিমাণ ছিল ২ হাজার টাকা। ৪৫.৫০ লক্ষ টাকা হিন্দুদের কাছ থেকে আদায় করা হয়েছিল, ২৪৪টি পরিবার ও মন্দির লুট করা হয়েছে, ১৩২২ কোটি টাকারও বেশি ক্ষতি হয়েছে।

তিনি বলেন, এ সময় ১১৬ টি অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছিল, ১০১ টি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে হামলার ঘটনা ঘটেছিল, এই সময়ের মধ্যে সংখ্যালঘুদের ১০,০০০ একর জমি অবৈধভাবে দখল করা হয়েছিল।

তুলনামূলক পরিসংখ্যান এঁকে দিয়ে তিনি বলেন, ২০১৫ সালের তুলনায় গত পাঁচ বছরে হিন্দুদের উপর দমন কয়েক গুণ বেড়েছে।

প্রামানিক বলেন, হিন্দুদের সুরক্ষা নিশ্চিত করার দাবিতে সরকার কর্তৃক এহেন আচরণ অব্যাহত রেখে দমন অব্যাহত রয়েছে।

প্রামানিক বলেছেন, তারা এ বিষয়ে ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনের সাথে যোগাযোগ করলেও তারা ভারত সরকারের কাছ থেকে কোনও সমর্থন পাননি।

সিভিল সোসাইটির কর্মীরা বলেছিলেন, বাংলাদেশ ও ভারত সরকারের মধ্যে সুসম্পর্ক থাকলেও দেশে হিন্দুদের উপর অত্যাচারের মতো ঘটনা ঘটছে।

জো বাইডেন কাজে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন

বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২১।

হোয়াইট হাউসে প্রথম দিনের কাজে ব্যস্ত জো বাইডেন
হোয়াইট হাউসে প্রথম দিনের কাজে ব্যস্ত জো বাইডেন ছবি: রয়টার্স

নতুন বাসিন্দা হিসেবে হোয়াইট হাউসে ঢুকেছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেন ও পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সেখানে প্রথম রাত কাটাচ্ছেন তিনি।

গতকাল বুধবার রাতে হোয়াইট হাউসের প্রথম রাতের বাসিন্দা হিসেবে ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেন টুইটবার্তায় হোয়াইট হাউসের একটি ভিডিওচিত্র প্রচার করেছেন। সঙ্গে দেওয়া বার্তায় তিনি বলেছেন, ‘আমাদের সবার চেয়ে বড় এমন কিছুর প্রতি আপনাদের বিশ্বাস স্থাপনের জন্য ধন্যবাদ। আমরা একত্রে একটি সুন্দর বিশ্ব নির্মাণ করব।’

যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে গতকাল দুপুরে শপথ গ্রহণ করার পর বাইডেন দিনভর নানা আনুষ্ঠানিকতায় কাটান। পূর্বসূরি তিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, জর্জ ডব্লিউ বুশ ও বিল ক্লিনটন এবং তাঁদের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে আর্লিংটন জাতীয় সমাধিস্থানে সস্ত্রীক যান বাইডেন। যুক্তরাষ্ট্রের ঐক্যের ক্ষেত্রে অন্যতম এই স্থাপনায় দাঁড়িয়ে সামরিক বাহিনীর দেওয়া স্যালুট গ্রহণ করা ছাড়াও ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস।

হোয়াইট হাউসের ওভাল অফিসে ডাকা প্রথম কনফারেন্সে বাইডেন নিজ প্রশাসনের উদ্দেশে বলেছেন, ‘আমি আপনাদের সহযোগিতা চাই। আমি অনেক ভুল করব। যখন ভুল করব, তখন তা আমি স্বীকার করব। ভুল সংশোধনে সাহায্য করার জন্য আমি আপনাদের সহযোগিতা চাই।’

বাইডেন তাঁর নিয়োগ করা প্রশাসনের কর্মীদের ভার্চ্যুয়ালি শপথ গ্রহণ করার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘আমি আপনাদের কাছ থেকে সততা ও শালীনতা চাই। আমাদের মনে রাখতে হবে, জনগণ আমাদের জন্য কাজ করে না। আমরা জনগণের জন্য কাজ করি। জনগণের প্রতি আমাদের দায়বদ্ধতা রয়েছে।’

ওয়াশিংটন ডিসির স্থানীয় সময় বিকেল চারটার কিছু আগে প্রেসিডেন্ট হিসেবে প্রথমবারের মতো হোয়াইট হাউসে ঢোকেন জো বাইডেন। হোয়াইট হাউসের কাছেই ট্রেজারি বিভাগের অফিস ভবনের সামনে বাইডেন ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের মোটরশোভাযাত্রা–সহকারে নিয়ে আসা হয়। বাইডেন স্ত্রী জিলের হাত ধরে পেনসিলভানিয়া অ্যাভিনিউ দিয়ে হোয়াইট হাউসে ঢোকার জন্য হাঁটতে থাকেন।

কড়া নিরাপত্তাবেষ্টনীর মধ্যেও দূর থেকে লোকজনকে হাত নেড়ে বাইডেন দম্পতিকে অভিনন্দন জানাতে দেখা যায়। বাইডেন ও জিলের পেছনে তখন হাঁটছিলেন পরিবারের অন্য সদস্যরা। হেঁটে যাওয়ার সময় বাইডেন এক মুহূর্তের জন্য থামেন। এনবিসি নিউজের সাংবাদিক আল রকারের সঙ্গে তাঁকে মুহূর্তের জন্য শুভেচ্ছা বিনিময় করতে দেখা যায়। একপর্যায়ে বাইডেন চলে যান এনবিসি নিউজের সাংবাদিক মাইক মেমলির সামনে। মাইক জানতে চান, কেমন লাগছে? জবাবে তিনি বলেন, ‘মনে হচ্ছে আমি বাড়িতেই ঢুকছি।’

আমি আপনাদের কাছ থেকে সততা ও শালীনতা চাই। আমাদের মনে রাখতে হবে, জনগণ আমাদের জন্য কাজ করে না। আমরা জনগণের জন্য কাজ করি। জনগণের প্রতি আমাদের দায়বদ্ধতা রয়েছে।

নিজ প্রশাসনের কর্মীদের উদ্দেশে জো বাইডেন

বাইডেন ও জিল হোয়াইট হাউসের উত্তর প্রবেশপথ দিয়ে হাঁটতে থাকেন। হোয়াইট হাউসের তাঁদের ঢোকার মুহূর্ত ক্যামেরায় ধরে রাখা হয়। এ সময় বাইডেন বলেন, ঐক্যই হলো দেশবাসীর উদ্দেশ্যে তাঁর বার্তা।

হোয়াইট হাউসে ঢুকে পূর্বসূরি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বার্তা পাওয়ার কথা প্রেসিডেন্ট বাইডেনের। ২০ জানুয়ারি বাইডেনের শপথ থেকে শুরু করে কোনো আনুষ্ঠানিকতায় ট্রাম্পের নাম উচ্চারিত হয়নি। ট্রাম্প যেমন বাইডেনের নাম মুখে নেননি, বাইডেনও তাঁর নাম মুখে আনেননি।

হোয়াইট হাউসে ঢুকে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে হাতে আজ নষ্ট করার সময় নেই। জনগণকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী প্রথম দিন থেকেই কাজ কাজ শুরু করার ঘোষণা দেন তিনি।

ট্রাম্পের মুখপাত্রের বরাতে মার্কিন সংবাদমাধ্যম বলেছে, প্রথা অনুযায়ী ট্রাম্প ওভাল অফিসের ড্রয়ারে উত্তরসূরি প্রেসিডেন্টের জন্য নোট লিখে গেছেন। এই নোটে কী আছে, তা জানা যায়নি। বাইডেনকে প্রেসিডেন্ট সম্বোধন করে আদৌ কী লেখা হয়েছে, এ নিয়ে মানুষের মধ্যে কৌতূহল বিরাজ করছে।

ট্রাম্প কখনো স্বীকার করেননি নির্বাচনে বাইডেন জিতেছেন। ৬ জানুয়ারি তাঁর আহ্বানে ক্যাপিটল হিলে সমর্থকদের তাণ্ডবের পর ট্রাম্প বলেছিলেন, ২০ জানুয়ারি ক্ষমতার পালাবদল ঘটবে। তবে এর আগে ট্রাম্প শান্তিপূর্ণভাবে হোয়াইট হাউস ছেড়ে যাবেন কি না, তা নিয়ে সংশয় ছিল।

বাইডেন বলেন, প্রেসিডেন্ট একটি উদার চিঠি লিখে গেছেন। চিঠিটি ব্যক্তিগত ও ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলার আগে তিনি এর বিষয়বস্তু প্রকাশ করতে পারেন না বলে সাংবাদিকদের জানান তিনি। তিনি চিঠিকে উদার বলে সাংবাদিকদের দ্বিতীয় দফা নিশ্চিত করেন।

হোয়াইট হাউসে ঢুকে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে হাতে আজ নষ্ট করার সময় নেই। জনগণকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী প্রথম দিন থেকেই কাজ কাজ শুরু করার ঘোষণা দেন তিনি।

বাইডেন বেশ কিছু নির্বাহী আদেশে দ্রুত সই করার কথা জানান সাংবাদিকদের। ক্যামেরার সামনেই তিনি সব ফেডারেল স্থাপনায় লোকজনকে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করে নির্বাহী আদেশ জারি করেন। গত ১০ মাসে যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় চার লাখের বেশি মানুষ মারা গেছেন। এ পরিস্থিতিতে চরম স্বাস্থ্য সংকটে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রবাসী। এমন কঠিন বাস্তবতায় প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিয়েছেন জো বাইডেন।

প্রথম কর্মদিবসেই ১৭টি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেন বাইডেন। অভিবাসনের দেশ যুক্তরাষ্ট্রের ভেঙে পড়া অভিবাসনব্যবস্থা সংস্কারে কংগ্রেসের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বাইডেন। পৃথক নির্বাহী আদেশে মুসলিমপ্রধান দেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে লোকজনের ঢোকার ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়েছে। ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পরই মুসলিমপ্রধান কয়েকটি দেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে ঢোকার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিলেন।

বাইডেন আগেই বলেছেন, করোনা মহামারির সংক্রমণ থেকে দেশবাসীকে বাঁচানোর উদ্যোগই হবে তাঁর প্রথম কাজ।

জলবায়ুবিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের ঐতিহাসিক প্যারিস চুক্তিতে পুনরায় যোগদানের নির্দেশেও স্বাক্ষর করেছেন বাইডেন। শপথ গ্রহণের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জাতিসংঘের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেন।

বৈশ্বিক উষ্ণতা মোকাবিলায় ২০১৫ সালে প্যারিসে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের করা চুক্তি থেকে সরে এসেছিলেন সদ্য সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। প্রথম দিনের নির্বাহী আদেশেই প্রেসিডেন্ট বাইডেন জলবায়ু সমস্যা নিয়ে গত চার বছরের নীতিকে ঘুরিয়ে দিয়েছেন। আগামী ৩০ দিনের মধ্যে প্যারিস চুক্তিতে ফিরে যাওয়ার সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে বলে নির্বাহী আদেশে বলা হয়েছে।

প্রথম কর্মদিবসেই ১৭টি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেন বাইডেন। অভিবাসনের দেশ যুক্তরাষ্ট্রের ভেঙে পড়া অভিবাসনব্যবস্থা সংস্কারে কংগ্রেসের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বাইডেন। পৃথক নির্বাহী আদেশে মুসলিমপ্রধান দেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে লোকজনের ঢোকার ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়েছে। ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পরই মুসলিমপ্রধান কয়েকটি দেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে ঢোকার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিলেন। এ নিয়ে সর্বত্র আন্দোলন শুরু হয়। এমন আদেশের মধ্য দিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প তাঁর অভিবাসনবিরোধী কার্যক্রমকে এগিয়ে নিয়েছিলেন।

নির্বাহী আদেশে অপ্রাপ্ত বয়সে মা–বাবার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে আসা কয়েক লাখ অভিবাসীকে বিতাড়িত করা বন্ধ রাখারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার চালু করা ডাকা কর্মসূচি নামের এ অভিবাসন কর্মসূচি বন্ধ করার নির্বাহী আদেশ দিয়েছিলেন ট্রাম্প। এখন বাইডেনের নির্বাহী আদেশের মাধ্যমে কর্মসূচিটি আবার চালু হয়ে ওঠায় যুক্তরাষ্ট্রে কয়েক লাখ অভিবাসীর স্থায়ীভাবে বসবাস করার পথ উন্মুক্ত হলো।

প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার আগেই বাইডেন অর্থনৈতিক সমস্যায় জর্জরিত যুক্তরাষ্ট্রের মানুষের সহযোগিতায় ১ দশমিক ৯ ট্রিলিয়ন ডলারের প্রণোদনা কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন। বুধবার সন্ধ্যায় হোয়াইট হাউসে প্রথম সংবাদ সম্মেলনে তাঁর প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি বলেন, এমন প্রণোদনা আইন পাসে দ্বিদলীয় সমঝোতাকেই প্রাধান্য দেওয়া হবে। তবে রিপাবলিকানদের কাছ থেকে বিরোধিতা এলে সব ধরনের বিকল্প ভাবনায় আছে।

কংগ্রেস ও সিনেটে ডেমোক্র্যাটদের সাধারণ সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকলেও এ ধরনের আইন প্রস্তাবের জন্য সিনেটে ৬০টি ভোটের প্রয়োজন। রিপাবলিকান পার্টির সঙ্গে সমঝোতা ছাড়া সিনেটে এমন আইন প্রস্তাব করার জন্য এত ভোট নেই। যদিও সিনেটে প্রবীণ ডেমোক্র্যাট ও বাজেট কমিটির প্রধান বার্নি স্যান্ডার্স বলেছেন, সিনেটে রিপাবলিকান পার্টির কথা তাঁরা শুনবেন। তবে জনগণকে সাহায্যের জন্য মাসের পর মাস এ নিয়ে ব্যয় করা হবে না। সিনেটের রিকন্সিলিয়েশন প্রক্রিয়ায় ৫১ ভোটেও এমন আইন প্রস্তাব পাস করার সুযোগ আছে বলে বার্নি স্যান্ডার্স স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন।

ভারতের উপহারের টিকা ঢাকায়

বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি ২০২১।

ভারতের পাঠানো টিকা বহন করার জন্য কাভার্ড ভ্যান ঢুকছে বিমানবন্দরে
ভারতের পাঠানো টিকা বহন করার জন্য কাভার্ড ভ্যান ঢুকছে বিমানবন্দরে ছবি: দীপু মালাকার

ভারতের উপহার হিসেবে দেওয়া ২০ লাখ করোনার টিকা আজ বৃহস্পতিবার ঢাকায় এসে পৌঁছেছে।

টিকা নিয়ে এয়ার ইন্ডিয়ার একটি উড়োজাহাজ আজ বেলা ১১টার দিকে ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশন এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশন সূত্র জানায়, ভারত উপহার হিসেবে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা উদ্ভাবিত ও ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট প্রস্তুতকৃত ২০ লাখ করোনার টিকা বাংলাদেশকে দিয়েছে। এই টিকা ঢাকায় এসেছে। আজ বেলা একটার দিকে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রীর হাতে উপহারের এই টিকা তুলে দেবেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী।

বিমানবন্দরে আসা টিকা তোলা হচ্ছে কাভার্ড ভ্যানে
বিমানবন্দরে আসা টিকা তোলা হচ্ছে কাভার্ড ভ্যানে ছবি: দীপু মালাকার

ভারতের উপহারের টিকা নিয়ে এয়ার ইন্ডিয়ার উড়োজাহাজ ঢাকার উদ্দেশে রওনা হওয়ার তথ্য নিজেদের ফেসবুক পেজে জানায় ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশন। এ–সংক্রান্ত পোস্টে তারা উল্লেখ করে, ‘গন্তব্য বাংলাদেশ! ভারতে তৈরি কোভিড ভ্যাকসিনের চালান। বাংলাদেশের উদ্দেশে রওনা হয়েছে!’

একই ফেসবুক পোস্টে কয়েকটি ছবিও দেয় ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশন। ছবিতে দেখা যায়, বাংলাদেশগামী এয়ার ইন্ডিয়ার উড়োজাহাজে ভারতের উপহারের টিকা তোলা হচ্ছে।

ভারতের উপহারের টিকা নিয়ে ঢাকায় এয়ার ইন্ডিয়ার উড়োজাহাজ
ভারতের উপহারের টিকা নিয়ে ঢাকায় এয়ার ইন্ডিয়ার উড়োজাহাজ ছবি: ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর টুইটার

উপহারের টিকার বাইরে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট ও বেক্সিমকো ফার্মার চুক্তি রয়েছে।

অনলাইনে নিবন্ধন ছাড়া কাউকে করোনার এই টিকা দেবে না সরকার। রাজধানীর চারটি হাসপাতালে এ মাসের শেষ দিকে টিকাদানের মহড়া বা ড্রাই রান হবে। ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে দেশব্যাপী টিকা কার্যক্রম শুরু করার প্রস্তুতি নিচ্ছে স্বাস্থ্য বিভাগ। শুরুতে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান টিকা দেওয়ার অনুমতি পাচ্ছে না।

বাংলাদেশগামী এয়ার ইন্ডিয়ার উড়োজাহাজে ভারতের উপহারের টিকা তোলা হচ্ছে
বাংলাদেশগামী এয়ার ইন্ডিয়ার উড়োজাহাজে ভারতের উপহারের টিকা তোলা হচ্ছে ছবি: ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনের ফেসবুক পেজ

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আবদুল মান্নান গতকাল বুধবার বলেছেন, এ মাসের ২৭ বা ২৮ তারিখে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে টিকা দেওয়া শুরু হতে পারে। প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠানে ভার্চ্যুয়ালি যোগ দিতে পারেন। এদিন সম্মুখসারির স্বাস্থ্যকর্মী, শিক্ষক, সাংবাদিক, পুলিশসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার ২০ থেকে ২৫ জনকে টিকা দেওয়া হবে। তবে তারিখ ও হাসপাতাল এখনো চূড়ান্ত হয়নি।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আরও বলেছেন, বেক্সিমকোর মাধ্যমে আসা টিকা ৮ ফেব্রুয়ারির আগে সারা দেশের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে পৌঁছে দেওয়া হবে। তারপরই একযোগে দেশব্যাপী টিকা দেওয়া শুরু হবে। ১৮ বছরের কম বয়সী, অন্তঃসত্ত্বা নারীসহ মোট সাত কোটি মানুষ টিকা পাবে না।

উপহারের ২০ লাখ ডোজ টিকা আসছে আজ

উপহারের ২০ লাখ ডোজ টিকা আসছে আজ
ফাইল ছবি

বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২১।

করোনা ভাইরাসের ২০ লাখ ডোজ টিকা আজ বৃহস্পতিবার দেশে আসছে।অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার এ টিকা ভারত সরকার বাংলাদেশকে উপহার হিসেবে দিচ্ছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেন, আজ বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় করোনার টিকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এই টিকা গ্রহণ করবে।জাতীয় পরিকল্পনার সঙ্গে এই ২০ লাখ টিকা যুক্ত করা হবে।এটা সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।আগামী ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে টিকা দেওয়া শুরু হবে।

বাংলাদেশ সরকারিভাবেও ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে ৩ কোটি ডোজ টিকা কিনছে, যার প্রথম চালানে ৫০ লাখ ডোজ টিকা ২৫ জানুয়ারির মধ্যে পৌঁছাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মো. আবদুল মান্নান বলেন, বাংলাদেশে নতুন করোনা ভাইরাসের টিকা আসার পর প্রথম দিনে ২০ থেকে ২৫ জনের ওপর তা প্রয়োগ করা হবে। আগামী ২৭ থেকে ২৮ জানুয়ারি টিকা প্রয়োগ শুরু হতে পারে। গতকাল বুধবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে আবদুল মান্নান জানান, টিকা বিতরণের পরিকল্পনা ইতিমধ্যেই করে ফেলা হয়েছে।

তিনি বলেন, প্রথম দিন চিকিত্সক, নার্স, বীর মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক, পুলিশ, সেনাবাহিনী, প্রশাসন, সাংবাদিকদের এক জন করেপ্রতিনিধিকে টিকা দেওয়া হবে। আমরা প্রথম দিন এরকম ২০ থেকে ২৫ জনকে টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা করেছি।আমরা কাজ করছি এই ২০-২৫ জন কারাহবেন।টিকা প্রয়োগ শুরুর দিনক্ষণের বিষয়ে মো.আবদুল মান্নান বলেন, আমাদের একটা সম্ভাব্য দিন ঠিক করা আছে ২৭ অথবা ২৮ জানুয়ারি। তবে এটা চূড়ান্ত নয়।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টিকাদান কর্মসূচি উদ্বোধন করবেন।ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল থেকে উদ্বোধন করার কথা রয়েছে, এটাই প্রাথমিক পরিকল্পনা।

স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব বলেন, টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, মুগদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল এবং কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালকে নির্বাচন করা হয়েছে।সেখানে ৪০০ থেকে ৫০০ জনকে টিকা দেওয়া হবে। 

প্রথমদিন টিকা দেওয়ার পরদিন ড্রাই রান বা টেস্ট হিসেবে এই টিকা দেওয়া হবে।তারপর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রটোকল অনুযায়ী, এক সপ্তাহ অপেক্ষা করব।

সভায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, কোভিড চলাকালীন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরথেকে যেভাবে স্বাস্থ্য বুলেটিন প্রচার করা হয়েছে একইভাবে কোভিড ভ্যাকসিন প্রদানের সকল তথ্য মানুষের কাছে দ্রুততার সঙ্গে পৌঁছে দিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে নিয়মিত ভ্যাকসিন বুলেটিন প্রচারের উদ্যোগনেওয়া হচ্ছে।

এদিকে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনও ভারত সরকারের উপহার হিসেবে ২০ লাখ ভ্যাকসিন আসার কথা জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ ছাড়াও আরো কয়েকটি দেশকে কোভিড-১৯ টিকা উপহার দিচ্ছে ভারত।দেশগুলো হলো: মালদ্বীপ, ভুটান, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তান ও মরিশাস।

সত্য সংবাদ প্রকাশে আপোষহীন

Disperser Tracks

Photography, Fiction, Travel, and Opinions.

slicethelife

hold a mirror up to life.....are there layers you can see?

Miriam's Well: Poetry, Land Art, and Beyond

Santa Fe Literary Scene, Poetry, Land Art, New Mexico

EPPIC - Pursuing Performance

To Protect and Improve the Enterprise for ROI

মুন্সিগঞ্জের খবর...

যেখানে ইতিহাস কথা বলে... (Munshigonj24.com)-(Munshiganj24.com)

আমার শহর শিলিগুড়ি

আমার শহর শিলিগুড়ি

অনুসন্ধাণ

ইতিহাস কে কেরিয়ার নয়, কেয়ার করায় বিশ্বাসী।

সি কক্স ক্রাইম টিভি

অপরাধ অনুসন্ধানে সি কক্স ক্রাইম টিভি

Satyanweshi

সত্যের অনুসন্ধানে

শিবসা নিউজ

সত্য অনুসন্ধানে আমরা প্রতিজ্ঞ

অনুসন্ধান ডটকম

সত্যের সন্ধানে অবিরত

newstop24bd.wordpress.com/

সত্যের সন্ধানে,অনুসন্ধানী আমরা'

wwwdeshprotidinbdcom.wordpress.com/

দেশ প্রতিদিন.কম

অনুসন্ধানবার্তা

অজানাকে জানতে চোখ রাখুন

MS TV

সত্যের সন্ধানে MS TV অনুসন্ধানে

Create your website at WordPress.com
শুরু করুন